নীলাকাশ টুডেঃ মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে লকডাউনে ভাড়ার বাইকচালক হিসেবে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ হয়ে আলোচনায় এসেছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মাসুদ রানা। এ নিয়ে পক্ষে- বিপক্ষে চলছে আলোচনা। এমনকি আইনজীবীদের মধ্যেও রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। আদালত খোলার পর সেই মাসুদ রানার খবর নিয়েছেন হাইকোর্ট।

সোমবার বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মোঃ আতোয়ার রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে একটি হত্যা মামলার আসামির জামিন শুনানি চলছিল। এই মামলায় আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মোঃ মাসুদ রানা। তাকে শুনানিতে দেখে আদালত জানতে চান, মিস্টার মাসুদ আপনি এখনো রাইড শেয়ারিং করেন কি না? তখন মাসুদ রানা বলেন, মাই লর্ড, এখন তো কোর্ট খুলেছে। এখন আর রাইড শেয়ারিং করি না।

মাসুদ রানা গণমাধ্যমকে বলেন, আদালত আমার বাইক রাইডিংয়ের বিষয়টি ইতিবাচক ভাবে দেখেছেন। বলেছেন, কোনো কাজই খারাপ বা লজ্জার নয়। এসময় রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোঃ সারওয়ার হোসেন বাপ্পী।

এর আগে ১৯ জুলাই হাইকোর্টের বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ মাসুদ রানাকে সতর্ক করেন। আদালত বলেন, ‘এগুলো করবেন না। ভালো হয়ে যান মিস্টার মাসুদ রানা।’

আইনজীবী মাসুদ রানার দুটি মামলায় দুই আসামির জামিনের আবেদন ছিল এই কোর্টে। সকালে মামলা দুটি শুনানি করতে গেলে আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারক তাকে দেখে বলেন, ‘মিস্টার মাসুদ আপনি বিখ্যাত হয়ে গেছেন বাইক চালাইয়া। এগুলো করবেন না। আপনি ভালো হয়ে যান।’

পরে আদালত আইনজীবী মাসুদ রানার আবেদন করা দুই মামলায় জামিন প্রশ্নে রুল জারি করে আদেশ দেন।

 

আরও পড়ুন

নতুন প্রেমিক খুঁজছেন মিয়া খলিফা!

 

নীলাকাশ টুডেঃ প্রেমিক খুঁজছেন মিয়া খলিফা! সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার ও স্পোর্টস ব্রডকাস্টার হিসেবে পরিচিত সাবেক এ পর্ন তারকা বিচ্ছেদের পর এখন আছেন নতুন প্রেমিকের সন্ধানে, এমন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে ইন্টারনেটে। এর আগে ২০১৯ সালে এক সুইডিশ শেফের সাথে আংটি বদল করেছিলেন মিয়া। গত বছরের জুনে তাদের বিয়ে হওয়ার কথা থাকলেও লকডাউনের কারণে তা ভেস্তে যায়। চলতি বছরের জুলাইয়ে নিজেদের বিচ্ছেদের কথা জানিয়েছিলেন মিয়া।

বিয়ে ভাঙার পর বেশ কিছুদিন হতাশ ছিলেন মিয়া খলিফা। তবে হতাশাকে দীর্ঘ না করে তিনি চান, নতুন করে জীবন শুরু করতো।

এদিকে জানা গেছে মিয়া খলিফাকে খুশি করতে নানাভাবে চেষ্টা করছেন অনেকেই। সম্প্রতি এক ট্যাটু আর্টিস্ট মিয়া খলিফার ছবি ট্যাটু করিয়েছেন নিজের পায়েই। ট্যাটু আর্টিস্ট ০১ নামক একটি ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে ওই ভিডিও পোস্ট করেছেন তিনি। শোনা যাচ্ছে, সেই ট্যাটু শিল্পী দিল্লির বাসিন্দা এবং মিয়ার প্রতি ভালবাসা ব্যক্ত করতেই এ কাজ করেছেন তিনি।