নীলাকাশ টুডেঃ বলিউড ভাইজান সালমান খানের নতুন এক ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

যেখানে দেখা গেছে, বিমানবন্দরের এক নিরাপত্তাকর্মী (সিআইএসএফ) ভারতের এতো বড় এক সুপারস্টারকে পাত্তাই দিচ্ছেন না। তার কাছে দায়িত্ব আগে পরে সেলিব্রেটি।

এমন ভিডিও দেখে ভারতীয় নেটিজেনদের একাংশ ওই নিরাপত্তাকর্মীর ভূয়সী প্রশংসায় মেতেছেন। কেউ বলছেন, এটি সালমান খানের জন্য ‘উচিত শিক্ষা’। সব জায়গায় ‘দাবাংগিরি’ চলে না, তা এবার হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছেন সালমান।

একজন লিখেছেন,‘খুব ভালো লাগল যে সিআইএসএফ অফিসার সালমানকে ভিতরে যেতে বাধা দিলেন।’

অন্য একজন লিখেছেন, ‘আমি সালমান খানের ভক্ত নই কিন্তু আমার সবচেয়ে ভালো লেগেছে যখন সিআইএসএফের অফিসার সালমানকে থামালেন। তাদের দায়িত্ব পালনের জন্য তাদের স্যালুট। ’

আরো এক ভারতীয় লিখেছিলেন, পাওয়ার অব সিআইএসএফ ইউনিফর্ম।

সালমানভক্তরা অবশ্য সেই নিরাপত্তা কর্মীর ওপর খেপেছেন। তারা বলছেন, এই অফিসার নিশ্চয়ই সালমানের ফ্যান নয়!তাই এমনটা করেছেন।

এক কথায় বিষয়টি নিয়ে ভারতের সোশ্যাল মিডিয়ায় দিনভর ভলোই চর্চা হয়েছে। বলিপাড়ায় চলছে এ নিয়ে নানা আলোচনা।

ঘটনাটি মুম্বাই বিমানবন্দরের। ‘টাইগার ৩’ ছবির শুটিংয়ের জন্য রাশিয়ায় যাচ্ছিলেন সালমান খান। আর সেই জন্যই ফ্লাইট ধরতে মুম্বাই বিমানবন্দরে পৌঁছন তিনি। সঙ্গে ছিলেন বলিউড অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফও।

ভিডিওতে দেখা গেছে, সালমান ও ক্যাটরিনার ছবি তুলতে বিমানবন্দরে হাজির হয়েছেন পাপারাৎজিরা। আর তাদের ক্যামেরার সামনে সালমান পোজ দিয়েই চলেছেন। এরপর সালমান মাস্ক বের করে মুখে লাগিয়েও ফের খুলে ফেলেন। এভাবেই বিমানবন্দরে গেটে ঢোকার সময় নিরাপত্তা কর্মী সালমানকে বাধা দেন। অনেকটা বিরক্তিভরে সালমানকে ওই নিরাপত্তা কর্মী বলেন, আগে নিয়ম মানুন, তারপর এসব হবে। মাস্ক পরে ঢুকতে হবে। করোনাবিধি ঠিকমতো পালন করতে হবে। পাশাপাশি সালমানের সঙ্গে আসা লোকজন ও পাপারাৎজিদের গেটে ভিড় জমাতে মানা করেন তিনি। নিরাপত্তা কর্মীর অমন নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করেই ভেতরে প্রবেশ করেন সালমান।

আরও পড়ুন

বিমান ছিনতাইয়ের ঘটনা অসত্য!

নীলাকাশ টুডেঃ ইউক্রেনের একজন মন্ত্রী বলেছেন, আফগানিস্তান থেকে তাদের একটি বিমান অস্ত্রের মুখে ছিনতাই করা হয়েছে। তবে ইউক্রেন সরকার পরে জানিয়েছে, এ রকম কোনো ঘটনা ঘটেনি। খবর গার্ডিয়ানের।

মঙ্গলবার ইউক্রেনের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়েভগেনি ইয়েনিন স্থানীয় একটি গণমাধ্যমকে বলেন, গত রোববার অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা আমদের একটি বিমান ছিনতাই করে। ছিনতাইকারীদের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। বিমানে ইউক্রেনের নাগরিকদের পরিবর্তে অজ্ঞাত যাত্রীরা ছিল। অস্ত্রের মুখে বিমানটি ইরানের দিকে নিয়ে যাওয়া হয়।

ইউক্রেনের মন্ত্রীর এমন বক্তব্যের পর দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র ভিন্ন তথ্য জানান। তিনি বলেন, বিমান ছিনতাইয়ের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

ওই মুখপাত্র আরও বলেন, প্রকৃত ঘটনা হলো- উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়েনিন আফগানিস্তান থেকে যাত্রীদের নিয়ে ফিরতে পাইলট যে সমস্যার সম্মুখীন হয়েছিলেন সেটা বুঝিয়েছেন। এ সময় তিনি জানান, আফগানিস্তান থেকে তিনটি ফ্লাইটে ২৫৬ জন নাগরিককে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। যে বিমানগুলো আফগানিস্তানে গিয়েছিল সবগুলো এখন দেশেই রয়েছে।

এদিকে বিমান ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠার পর ইরানের একজন কর্মকর্তা বলেন, ইউক্রেনের বিমানটি উত্তরপূর্ব শহর মাসাহাদে জ্বালানি নেওয়ার জন্য অবতরণ করেছিল। এরপর বিমানটি পুনরায় ইউক্রেনের উদ্দেশ্যে উড্ডয়ন করে।

অন্যদিকে ফ্লাইটরাডার ডাটার তথ্য অনুসারে, সোমবার ইউক্রেনের একটি বিমান আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল থেকে ইরানের মোসাহাদ শহরের দিকে যায়। পরে বিমানটি মোসাহাদ থেকে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে যায়।

আরও পড়ুন

বান্ধবীর জন্মদিনে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হলেন প্রবাসীর স্ত্রী

নীলাকাশ টুডেঃ নোয়াখালী অনুষ্ঠানে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছে এক প্রবাসীর স্ত্রী (২২)। এ ঘটনায় সোমবার বিকেলে নির্যাতিত গৃহবধূ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

এর আগে, গত শুক্রবার (২০ আগস্ট) রাত ১০টার দিকে উপজেলার কাদরা ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযোগে ভুক্তভোগী গৃহবধূ জানান, গত গুক্রবার রাত ৯টার দিকে তিনি তার বান্ধবীর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে তাদের বাড়িতে যান। জন্মদিনের কেক কাটার পর স্থানীয় লেদু মিয়ার ছেলে সন্ত্রাসী ফরহাদের (২৫) নেতৃত্বে ৫-৭ জন লোক ওই বাড়িতে আসে। এ সময় তারা অনুষ্ঠানে আসা রাজন নামে এক যুবকের সাথে তার সম্পর্ক আছে বলে ভুয়া অভিযোগ তুলে তাদেরকে ফরহাদের বিল্ডিংয়ে নিয়ে আটক করে। একপর্যায়ে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। রাজন চাঁদা দিতে অস্বীকার করে বিভিন্ন জায়গায় ফোনে যোগাযোগ করলে কিছুক্ষণ পর রাজনকে ছেড়ে দেয়। পরে তাকে আটকে রেখে কুপ্রস্তাব দেয় সন্ত্রাসীরা। তাতে রাজি না হওয়ায় রুমের দরজা বন্ধ করে সন্ত্রাসী ফরহাদ তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় ফরহাদের সাঙ্গপাঙ্গরা বাইরে পাহারা দেয়।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল বাতেন মৃধা জানান, এ ঘটনায় ধর্ষক ফরহাদকে প্রধান আসামি করে তিনজনের বিরুদ্ধে নারীও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন নির্যাতিতা গৃহবধূ। পুলিশ অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতারে চেষ্টা চালাচ্ছে।