নীলাকাশ টুডেঃ মুক্তিযোদ্ধা না হয়েও যারা মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ চেয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) মাধ্যমে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন উদ্বোধন শেষে মন্ত্রী সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

 

সাতক্ষীরাকে জামায়াত-শিবির অধ্যুষিত এলাকা আখ্যা দিয়ে উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত করা হয়- এমন অভিযোগ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, সকল জেলায় সমানভাবে উন্নয়ন করা হয়। সাতক্ষীরায় ইতোমধ্যে অনেক কাঙিক্ষত উন্নয়ন হয়েছে। উন্নয়নের শেষ নেই। আগামী নির্বাচনের এখনো এক বছর বাকি রয়েছে। এর আগেই বাকি অসম্পূর্ণ কাজগুলো সম্পন্ন করা হবে।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে আমাদের ভাবনার কিছু নাই। নির্বাচন একটি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া। পাঁচ বছর পর এই পরীক্ষার সম্মুখীন হতে হয়। আমরা আশাবাদী যেভাবে উন্নয়ন কাজ হয়েছে এবং আমরা জনগণের পাশে ছিলাম, এটা বিবেচনায় নিয়ে জনগণ আবারও আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করবে।

এ সময় সাতক্ষীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহম্মেদ রবি, সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, পুলিশ সুপার কাজী মনিরুজ্জামান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন উদ্বোধন শেষে সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে জেলার মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় যোগ দেন মন্ত্রী। সেখানে বক্তব্য দেন জেলার সাত উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।