শ্যামনগর অফিসঃ দাদার ছুড়ে মারা শাবলের আঘাতে মারাত্মক আহত হয়েছে মোহনা নামের চার বছরের এক শিশু।বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ছয়টার দিকে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার হাওল ভাঙ্গি চরের বিলে ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। এ সময় পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে এক পল্লী চিকিৎসক ও পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় সেখানে ক্ষত যুক্ত স্থানে সেলাই দেওয়ার পর রক্তক্ষরণ বন্ধ হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে শঙ্কামুক্ত ঘোষণা করেন। মোহনা শ্যামনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের চর এলাকার ইটভাটা শ্রমিক সরদার আল আমিন গাজীর মেয়ে বলে জানা যায়।

কুকুরের উদ্দেশ্যে দাদা নুর ইসলামের ছুড়ে মারা শাবল ড্রিবোলিং করে মোহনার মুখে আটকে যায় বলে দাবি করেছে আহত শিশুর স্বজনরা। তবে স্থানীয়রা জানিয়েছেন, পারিবারিক কলহের জের ধরে তার মাকে উদ্দেশ্য করে ছুঁড়ে মারা শাবল পাশে থাকা মোহনার চোয়ালের মধ্যে যেয়ে বিঁধে।

এই বিষয়ে আহতের মামা মেহেদী হাসান গণমাধ্যমকে জানান, আহত মোহনার পিতা কাজের জন্য এলাকার বাইরে রয়েছে, তাঁর মুঠোফোন বন্ধ থাকায় যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। মোহনার পিতার সাথে যোগাযোগ করার পর আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।