মোঃ নুরুজ্জামানঃ করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় সাতক্ষীরা জেলায় কঠোর ও কঠিন লকডাউ‌ন দিয়েছে প্রশাসন। লক ডাউনেরব প্রথম শর্ত হল অপ্রয়োজনে কেউ ঘর থেকে বাহির হবে না। ঘর থেকে মানুষ বাহির হলেও কাজ কর্ম হারিয়ে দিশাহারা মানুষ।

ভাবছিল যেহেতু বাড়ির বাহিরে বাহির হওয়া নিষেধ, সেহেতু বিদ্যুৎ বিল বকেয়া আপাতত দেওয়া লাগবে না। ভাবনার আগেই পল্লী বিদ্যুৎ কতৃপক্ষের লোকজনেরা বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করার জন্যে মাইকিং করছে । বলা হচ্ছে যদি বিদ্যুৎ বিল সঠিক সময়ের মধ্যে পরিশোধ করা না হয় তাহলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হবে, সেই সাথে জরিমানাও গুনতে হবে। এই ঘটনায় বিপা‌কে পড়েছে খে‌টে- খাওয়া নিম্ন‌বিত্ত অা‌য়ের মানু‌ষেরা!

ঘর থেকে বাহির হতে দিচ্ছে না সরকার আবার বিদ্যুৎ বিল সঠিক সময়ের মধ্যে পরিশোধ করতে মাঠে নেমে মাইকিং করছে বিদ্যুৎ অফিস। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক লোকজন জানিয়েছেন, আমরাতো পাগল হয়ে যাবো, সরকার বলছে, ঘরে থাকুন, বিদ্যুৎ অফিস বলছে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে বাহিরে আসুন, না হলে জরিমানা সহ বকেয়া বিল পরিশোধ করতে হবে। হচ্ছে কি আমাদের সাথে? এনজিও কর্মীরা বলছে, আমরাতো করোনার সময়ে লোন দিচ্ছি, আপনারা কেন কিস্তি দিবেন না।

খেটেখুটে খাওয়া, নিম্ন ও মধ্যবিত্ত ব্যবসায়ীরা বলেছে আমাদের ক্ষতি কেউ দেখে না। সমিতির কিস্তি বাকি রাখলেও সুদ বাড়বে, বিদ্যুৎ বিল সঠিক সময়ে না দিলে জরিমানা, সরকারের পক্ষ থেকে ঘরের বাহিরে যাওয়া মানা। সাধারণ মানুষের দাবি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের লোকজন বিষয়টি কি করা যেতে পারে সেই বিষয়ে চমৎকার সিদ্ধান্ত নিবেন।