নীলাকাশ টুডেঃ রাজধানী ঢাকার রেইনট্রি হোটেলে দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হওয়ার ঘটনায় আলোচিত মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসার বারিধারার একটি বাসায় অভিযান চালিয়েছে ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগ। তার বাসা থেকে বিদেশি মদ, ইয়াবা ও সিসা উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পিয়াসাকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

রোববার রাতে পিয়াসার বারিধারার ৯নং রোডের ৩নং বাসায় অভিযানে যায় গোয়েন্দা গুলশান বিভাগের একটি দল।

অভিযান কালে পিয়াসার ঘরের টেবিল থেকে চার প্যাকেট ইয়াবা (কত পিস জানা যায়নি), রান্না ঘরের ক্যাবিনেট থেকে ৯ বোতল বিদেশি মদ, ফ্রিজে একটি আইসক্রিমের বাক্স থেকে সিসা তৈরির কাঁচামাল এবং বেশ কয়েকটি ই-সিগারেট পাওয়া গেছে। এছাড়া পিয়াসার কাছ থেকে ৪টি স্মার্টফোন জব্দ করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

অভিযান শেষে গোয়েন্দা পুলিশের নারী সদস্যদের মাধ্যমে পিয়াসাকে একটি মাইক্রোবাসে তুলে ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়েছে।

ডিএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মহিদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন, কিছু সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে তার (মডেল পিয়াসা) বাসায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। তাকে আটক করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের মে মাসে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণের শিকার হন দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী। ওই ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার এজাহারভুক্ত পিয়াসা। সেই ঘটনায় সারা দেশে তোলপাড় শুরু হয়। প্রথমে মামলা করতে ভুক্তভোগীদের সহযোগিতা করেছিলেন পিয়াসা। কিন্তু পরে পিয়াসার বিরুদ্ধেই মামলা তুলে নেওয়ার হুমকির অভিযোগে জিডি করেন ভুক্তভোগীদের একজন। সেই ঘটনার ৪ বছর পর ফের আলোচনায় মডেল পিয়াসা।

 

আরও

যে কারণে কান্দাহার দখলে মরিয়া তালেবান

নীলাকাশ টুডেঃ আফগানিস্তানে তালেবান যোদ্ধারা দক্ষিণাঞ্চলে অবস্থিত কান্দাহার বিমানবন্দরে অন্তত তিনটি রকেট আঘাত হেনেছে। শনিবার রাতে এ হামলার ঘটনা পর বিমানবন্দর থেকে সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, তালেবান কান্দাহারসহ আফগানিস্তানের তিনটি গুরুত্বপূর্ণ শহর নিয়ন্ত্রণ নিতে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বাকি দুটি শহর হলো হেরাত ও লস্করগাহ।

এই শহরগুলো ঘিরে সরকারি বাহিনীর সঙ্গে তালেবানের লড়াই জোরদার হচ্ছে। আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনীর কাছ থেকে এই তিন শহরের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের দখলে নিতে চায় তালেবান।

সম্প্রতি তালেবানের একধিক নেতা ঘোষণা দেন যে তারা জোরপূর্বক শহরগুলো দখল করতে চান না। আমির খান মুত্তাকি নামে এক তালেবান নেতা বলেন, পাহাড় ও মরুভূমি থেকে যুদ্ধ এখন শহরগুলোর দরজায় এসে পৌঁছেছে। মুজাহিদরা শহরের ভেতরে লড়াই করতে চায় না।

কিন্তু তালেবান কেন কান্দাহার দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে সেই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে

কান্দাহার আফগানিস্তানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর। কান্দাহারে বিমানঘাঁটি রয়েছে। তালেবানের জন্য সরকারি বাহিনীর কাছ থেকে কান্দাহার দখলে নেওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা এই বিমানঘাঁটির মাধ্যমেই সরকারি বাহিনী তালেবানবিরোধী লড়াইয়ে নানা সাহায্য-সহযোগিতা পেয়ে থাকে।

এদিকে, দুই প্রাদেশিক রাজধানী হেরাত ও লস্করগাহ দখলের জন্যও অগ্রসর হচ্ছে তালেবান। এই শহর দুটির অবস্থাও নাজুক।

বিবিসি বলছে, দেশটির সরকারি বাহিনী তিন শহরের নিয়ন্ত্রণ কতটা সময় ধরে রাখতে পারবে, তা নিয়ে গুরুতর সন্দেহ আছে।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বর নাগাদ আফগানিস্তান থেকে প্রায় সব বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে ঘোষণা আসার পরই তালেবান হামলা ও বিভিন্ন এলাকায় নিজেদের নিয়ন্ত্রণ পুনঃপ্রতিষ্ঠায় অভিযান জোরদার করে। ইতিমধ্যে তারা আফগানিস্তানের গ্রামীণ এলাকায় নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছে। তবে তালেবান এখন পর্যন্ত কোনো প্রাদেশিক রাজধানী দখল করতে পারেনি। কিন্তু এখন তারা সেই লক্ষ্যে অগ্রসর হচ্ছে। তালেবানের দাবি, তারা ৮৫ শতাংশ এলাকায় নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছে। এ ছাড়া তারা পাকিস্তান ও ইরানের সঙ্গে থাকা গুরুত্বপূর্ণ সীমান্ত ক্রসিংও নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে।

তালেবান আফগানিস্তানে পশ্চিমা-সমর্থিত গনি সরকারকে উৎখাত করে ইসলামি আইন চালু করতে চায়।

সূত্র: বিবিসি