নীলাকাশ টুডেঃ নিজের বিপদ নিজেই ডেকে এনেছিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

পর্তুগালের হয়ে বিশ্বকাপ খেলতে এসেছেন কাতারে, এর মধ্যেই এল ঘোষণাটা। তিনি আর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের খেলোয়াড় নন। এমন কিছুর আভাস সপ্তাহ খানিক আগে থেকেই ছিল।

কিন্তু বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামার আগেই যে ইউনাইটেডের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ হয়ে যাবে, সেটি অনেকেরই ধারণায় ছিল না। হুট করে ঘোষণাটা আসাতেই ঘটেছে বিপত্তি।

 

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সঙ্গে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর চুক্তি বাতিল

ফিফার নিয়ম অনুযায়ী কোনো খেলোয়াড়ের বিমা না থাকলে তিনি বিশ্বকাপে খেলতে পারবে না। এই বিমা ক্লাব থেকেই করা হয়ে থাকে সাধারণত। কিন্তু প্রথম ম্যাচের আগে রোনালদো ক্লাবহীন হয়ে যাওয়ায় তাঁর বিমা নেই। তিনি কি বিশ্বকাপে খেলতে পারবেন?

 

পর্তুগিজ ফুটবল ফেডারেশন স্বাভাবিকভাবেই এগিয়ে এসেছে দলের সেরা তারকাকে উদ্ধারে। পর্তুগালের সংবাদমাধ্যম ডাইরিও ডি নোটিসিয়াসের খবরে বলা হয়, বিশ্বকাপে রোনালদোর খেলা নিশ্চিত করতে তড়িঘড়ি করে বিশেষ বিমা ব্যবস্থার উদ্যোগ নিয়েছেন এফপিএফ প্রেসিডেন্ট ফার্নান্দো গোমেজ।

আজ ঘানার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামার আগে বিমা নিয়েই খেলতে নামবেন রোনালদো।

 

ফিফার বিধি অনুসারে, জাতীয় দলের জন্য ক্লাবগুলো যখন খেলোয়াড় ছাড়ে তখন তাদের জন্য বিমা করা বাধ্যতামূলক। বিনিময়ে ফিফা সংশ্লিষ্ট ক্লাবকে অর্থও পরিশোধ করে।

হিসেবটা করা হয়, ওই খেলোয়াড় কত দিন জাতীয় দলের হয়ে সময় দিয়েছেন তার ভিত্তিতে। পুরো দলের সব খেলোয়াড়ের অর্থ জাতীয় দল কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠায় ফিফা। পরে সেই অর্থ ক্লাবগুলোর কাছে বণ্টন করে দেওয়া হয়। রোনালদোর জন্য দেওয়া অর্থটা এখন পর্তুগিজ ফুটবল ফেডারেশনই পাবে।

 

অনুশীলনে ইংল্যান্ড দল
ডাইরিও ডি নোটিসিয়াস জানিয়েছে, জাতীয় দলের সঙ্গে কাটানো প্রতিটি দিনের জন্য ৯ হাজার ৬০০ করে দেবে ফিফা। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ ১০ লাখ টাকার বেশি।