নীলাকাশ টুডেঃ কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবের কাছে বড় ধরনের ধাক্কা খেয়েছে এবারের আসরের অন্যতম দাবিদার আর্জেন্টিনা। প্রথম ম্যাচে পরাজিত হওয়ার পর “কোনো অজুহাত” খুঁজতে নারাজ আর্জেন্টাইন ক্যাপ্টেন লিওনেল মেসি। তবে দক্ষিণ আমেরিকার চ্যাম্পিয়নরা আবার ঘুরে দাঁড়াবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

সমর্থকদের প্রতি মেসির বার্তা, “আমাদের ওপর ভরসা রাখুন। আমরা ভক্তদের হতাশ করবো না।”

ইএসপিএন জানায়, গতকাল মঙ্গলবার সি গ্রুপের ম্যাচে সৌদি আরবের কাছে ২-১ গোলে পরাজিত হবার পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মেসি বলেন, এটি একটি বড় ধাক্কা। কষ্টদায়ক একটি হার। তবে আমাদের নিজেদের উপর আস্থা আছে। আমাদের দলটি আর কাউকে ছাড় দিবে না। আমরা অবশ্যই পরের ম্যাচে মেক্সিকোকে হারাবো।

মেসি আরও বলেন, আমরা জানতাম সৌদি আরবের দলটিতে বেশ ভালো কিছু খেলোয়াড় আছে। তারা গোটা মাঠ চষে বেড়িয়েছেন। আমরা তাদের রক্ষন ভাঙার চেষ্টা করেছি। তবে কিছুটা তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে ১-২ গোলে পিছিয়ে পড়ি। আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকতে পারিনি। আমাদের পারফর্মেন্সের মান তখন নেমে যায়। এ সময় আমরা কিছুটা বেপরোয়া ভাবে খেলতে চেয়েছিলাম।

 

এর আগে মঙ্গলবার ম্যাচের মাত্র ১০ মিনিটের মাথায় লিওনেল মেসির পেনাল্টি গোলে পিছিয়ে পড়ে সৌদি আরব। কিন্তু বিরতি থেকে ফেরার পর সৌদির হয়ে পরপর দুই গোল করেন সালেহ আল-শেরি ও সালেম আল-ডসারি। বিশ্বকাপের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় অঘটনের জন্ম দেয় মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি।

সাত বারের ব্যালন ডি’অর খেতাব জয়ী মেসি বলেন, পরের ম্যাচে আমরা সঠিক পথে ফেরার বিষয়ে আশাবাদি। সেখানে কোনো অজুহাত চলবে না। আমরা এযাবৎকালে আরও বেশী সংগঠিত হতে যাচ্ছি। আমাদের এই দলটি বেশ শক্তিশালী, যা ইতোমধ্যে আমরা প্রদর্শন করেছি।

দুঃস্বপ্নে শুরু হল আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ

দলের দক্ষতার প্রশ্নে এ তারকা ফুটবলার বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ আমরা এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হইনি। এখন আমাদের এটি প্রমাণের সময় এসেছে যে, এই দলটি বেশ দক্ষ।

এদিকে এই ম্যাচে মোট তিনটি গোল বাতিল হয়েছে অফসাইডের কারণে। আর্জেন্টাইন সমর্থকরা বিষয়টি নিয়ে বিতর্কে জড়ালেও আধুনিক টেকনোলোজি বলছে, ম্যাচ রেফারির প্রতিটি সিদ্ধান্ত এক্ষেত্রে সঠিক ছিল।