নীলাকাশ টুডেঃ রোববার ভার্চুয়াল মাধ্যমে গণশুনানিতে নানা প্রশ্ন ও অভিযোগ শুনেন গণশুনানি কমিটির সভাপতি বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার।
গণশুনানিতে নানা প্রশ্ন ও অভিযোগ শুনেন গণশুনানি কমিটির সভাপতি বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার। ছবি: সংগৃহীত

ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট মাসিক ফি সংযোগ ফি সরকার নির্ধারিত মূল্যেই নিতে হবে, নিজেদের ইচ্ছামতো নেওয়া যাবে না বলে সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি হুশিয়ারি দিয়েছেন বিটিআরসি মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসিম পারভেজ।

তিনি বলেন, গ্রাম থেকে শহর, সারাদেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগের মাসিক ফি, বেসরকারি নেটওয়ার্ক ট্রান্সমিশন সেবাদাতা (এনটিটিএন) এবং ইন্টারনেট গেটওয়ে (আইআইজি) ট্যারিফ বেঁধে দেওয়া হয়েছে। তাই আইএসপিগুলো আর তাদের মত করে দাম নিতে পারবে না।

রোববার ভার্চুয়াল মাধ্যমে আয়োজিত এই গণশুনানিতে তিনি এসব কথা বলেন।

দেশে ‘এক রেটে’ ইন্টারনেট সেবামূল্য (ট্যারিফ) নির্ধারণ করা হয়েছে। ফলে এখন থেকে কম দামে ইন্টারনেট পাওয়া যাবে। এই নতুন দাম আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর হবে।

আইএসপির দাম তিনটি স্ল্যাবে (৫ এমবিপিএস ৫০০ টাকা, ১০ এমবিপিএস ৮০০ এবং ২০ এমবিপিএস এক হাজার ২০০ টাকা) বেঁধে দেওয়া হয়।

এর আগেও এই তিনটি প্রতিষ্ঠানের সেবামূল্য ছিল। কিন্তু তা কখনই সরকারিভাবে বেঁধে দেওয়া হয়নি। প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেরা একটা দাম নির্ধারণ করে তা গ্রাহকের সামনে উপস্থাপন করত।

রোববার বিটিআরসির গণশুনানিতে ইন্টারনেট সেবার নানা প্রসঙ্গ ওঠে আসে। আইএসপি সিন্ডিকেটের কারণে গ্রাহকরা নিজেদের ইচ্ছামতো আইএসপি সেবা নিতে পারে না।

এসময় বিটিআরসির পক্ষ থেকে আশ্বস্ত করা হয়, কোনো এলাকায় কোনো আইএসপির অন্য সেবাদাতাকে বাধা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেলে অবশ্যই আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রোববার গণশুনানিতে মোবাইল অপারেটরগুলোর সেবা, নেটওয়ার্ক সমস্যা, ইন্টারনেটে ধীরগতি, অতিরিক্ত টাকা কেটে নেওয়া, কলড্রপ, এমএনপি সেবায় ভোগান্তি ও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের মূল্য নিয়েই ঘুরেফিরে অভিযোগ করেছেন গ্রাহকরা।

এর আগে ২০১৬ ও ২০১৯ সালের গণশুনানিতেও প্রায় একই অভিযোগ এসেছিল।

রোববার ভার্চুয়াল মাধ্যমে দুপুর ২টা থেকে প্রায় তিন ঘন্টার এই গণশুনানিতে নানা প্রশ্ন ও অভিযোগ শুনে গণশুনানি কমিটির সভাপতি বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার।

তিনি বলেন, আমরা অনেক ধরনের অভিযোগের কথা শুনলাম। কিছু অভিযোগের তাৎক্ষণিক সমাধান দেওয়া হয়েছে। আমরা সব সময় সেবার মান উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। খুব বেশি কথা বলতে চাই না, সব তথ্য নিয়েই সব বিষয়ে কথা বলব। আমরা চাই ভুলগুলো ধরিয়ে দিন আমরা সেগুলো সমাধান করব।

এবার গণশুনানিতে ২৬টি বেশির প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হয়। এতে অংশ নিতে ইচ্ছুকরা আগে থেকেই অনলাইনে নিবন্ধিত ছিলেন।

গণশুনানিতে মালেক নামে একজন অভিযোগ করে বলেন, ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগে এলাকায় এলাকায় পেশিশক্তি দেখানো হচ্ছে। ইচ্ছামত যে কারো লাইন নেওয়া যাচ্ছে না। এছাড়া আইএসপিগুলো তাদের ইচ্ছেমত দাম রাখছে।

সোহাগ কায়সার নামে একজন নম্বর ঠিক রেখে অপারেটর বদলের এমএনপি সেবা নিয়ে ভোগান্তির কথা তুলে ধরে বলেন, এক অপারেটর থেকে অন্য অপারেটরে গেলেও কয়েকদিন পর নেটওয়ার্ক চেইঞ্জ হয়, এতে ভোগান্তিতে পড়েছিলাম।

বিটিআরসি মহাপরিচালক (সিস্টেম অ্যান্ড সার্ভিসেস) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসিম পারভেজ আরও বলেন, অপারেটর বদলে একটি নিদিষ্ট সময় পরে নেটওয়ার্ক পরিবর্তন হয়। তাও এ বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হবে গ্রাহকদের অসুবিধা হচ্ছে কিনা।

সূত্র যুগান্তর

আরও পড়ুন

বিয়ের দাবিতে শিক্ষকের বাড়িতে অনশন সন্তাননের জননী পপি!

নীলাকাশ টুডেঃ বিয়ের আশ্বাসে প্রবাসী স্বামীকে তালাক দিয়ে স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবিতে শাহিন নামে এক শিক্ষকের বাড়িতে অবস্থান করছেন পপি আক্তার (২৩) নামে এক সন্তাননের জননী।

রোববার দুপুর ২টার দিকে উপজেলার কাকচিড়া ইউনিয়নের শিংড়াবুনিয়া গ্রামের সায়েদ মিয়ার ছেলে শাহিন মিয়ার বাড়িতে আসেন এবং স্ত্রীর স্বীকৃতি না দিলে বিষ খেয়ে অথবা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করার হুমকি দেন ওই নারী।

৮ বছরের শিশু সন্তানকে নিয়ে ওই শিক্ষকের বাড়িতে গিয়ে শিক্ষকের মা- বাবার কাছে বিষয়টি জানানোর সাথে সাথে পপি আক্তারকে গাছের সাথে বেঁধে মারধর করে পালিয়ে যায় বলেও অভিযোগ করেন ওই নারী।

পপি উপজেলার কাকচিড়া ইউনিয়নের কাকচিড়া গ্রামের মোশাররফ হোসেন জোমাদ্দারের মেয়ে।

পপি আক্তার বললেন, মঠবাড়িয়া টিয়াখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মোঃ শাহিন তার স্ত্রীকে নিয়ে কাকচিড়া বাজারে ভাড়া বাসায় থাকতেন। স্ত্রী অসুস্থ্য থাকায় প্রায়ই বাসা খালি থাকতো। এ সুযোগে তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

জানা যায়, গত ছয় মাস তাদের পরকীয়া সম্পর্ক একপর্যায় শারীরিক সম্পর্ক পর্যন্ত গড়ায়। শাহিন তাকে বিয়ে করার কথা বলে স্ত্রীর মতো ব্যবহার করে। পরে স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইলে তা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। পরে রোববার সকালে একমাত্র ছেলে সন্তান নিয়ে শাহিনের বাড়িতে এসে বিয়ে করতে বলায় শাহিনের মা-বাবা ও পরিবারের লোকজন লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। পরে বাড়ির সকলে পালিয়ে গেলে ঘরের তালা ভেঙ্গে প্রবেশ করে পপি।

তিনি আরো বলেন, স্ত্রীর স্বীকৃতি না দিলে সন্তানসহ এই ঘরেই বিষ অথবা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করবো।

এ বিষয় অভিযুক্ত শাহিন ও তার পরিবারের কাউকেই বাড়িতে না পাওয়ায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

কাকচিড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন পল্টু বলেছেন, খবরটি শুনেই ২ নম্বরওয়ার্ডের মেম্বর এবং চৌকিদারকে পাঠিয়েছি। বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করছি।

পাথরঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল বাশার বলেছেন, এমন অভিযোগের কথা আমি শুনেছি।