সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:২৯ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
সাতক্ষীরায় একজনের ফাঁসি শ্যামনগরে সড়ক দুর্ঘটনায় অফিসার সহ আহত ৩ সাতক্ষীরায় ট্রাকের ধাক্কায় গৃহবধূ নিহত হিরো আলমকে তথ্যমন্ত্রীর অভিনন্দন তাদেরকে হেদায়েত কর, না হলে মাটিতে মিশিয়ে দাও! শ্যামনগরে হরিণের মাংস সহ ডিঙ্গি নৌকা আটক বেনাপোলে ফেনসিডিল সহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক ওয়াজ মাহফিলে দাওয়াত না পেয়ে আ.লীগের দু’পক্ষের বাড়িঘর ভাঙচুর হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে হত্যা গ্রাহকদের কাছ থেকে দাম বেশি নিয়ে ডাকাতি করছেন গ্যাস ব্যবসায়ীরা! স্ত্রীকে কুপ্রস্তাব, ব্যবসায়ীকে বাসায় ডেকে শেষ করলেন স্বামী ঢাকায় ‘ছোঁ পার্টির’ ১৬ জন গ্রেফতার স্বর্ণের দাম কমল ভরিতে যত বাংলাদেশ ও পাকিস্তানি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক ফেসবুক লাইভে এসে যা বললেন হিরো আলম

বিএনপির কার্যালয়ে অভিযানে গ্রেফতার হওয়া নেতা-কর্মীর সংখ্যা জানালো পুলিশ

রিপোর্টারের নাম
আপডেট বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ৫:৪৩ অপরাহ্ন

 

নীলাকাশ টুডেঃ ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেছেন, রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে ৩০০ নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে। এ ছাড়া কার্যালয় থেকে ১৬০ বস্তা চাল জব্দ করা হয়েছে। নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষের সময় পুলিশের অন্তত ৫০ সদস্য আহত হয়েছেন।

আজ বুধবার রাত নয়টার দিকে এ অভিযান শেষ হয়। এর আগে রাত পৌনে নয়টার দিকে রাজধানীর নয়াপল্টন এলাকায় সাংবাদিকদের ডিবির প্রধান এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, ৩০০ আটকের মধ্যে কারও বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা, কারও বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। মামলার বাইরে যাঁদের আটক করা হয়েছে, যাচাই-বাছাই করে তাঁদের বিষয়ে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

হারুন অর রশীদ বলেন, সমাবেশ আরও তিন দিন পর। তিন দিন আগেই তাঁরা এখানে অবস্থান নিয়েছিলেন। সরিয়ে দিতে গেলে পুলিশকে লক্ষ্য করে তাঁরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটান। এতে পুলিশের অন্তত ৫০ সদস্য আহত হয়েছেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, বিএনপির কার্যালয়ে অভিযান ও তল্লাশি চালিয়ে বিস্ফোরক ও ককটেল পাওয়া গেছে। এ ছাড়া পৌনে দুই লাখ পানির বোতল, প্রায় দুই লাখ নগদ টাকা ও ১৬০ বস্তা চাল পাওয়া গেছে। তাঁরা এসব খাদ্যদ্রব্য এনেছিলেন যাতে নেতা-কর্মীরা এখানেই রান্না করে খেয়েদেয়ে থাকতে পারেন।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি পাওয়ার পরও নয়াপল্টনে বিএনপির নেতা-কর্মীরা উদ্দেশ্যমূলকভাবে সমবেত হয়েছিলেন বলেও অভিযোগ করেন হারুন অর রশীদ।

তবে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, পুলিশ বাইরে থেকে ব্যাগে করে বিস্ফোরক এনে বিএনপি কার্যালয়ের ভেতরে রেখেছে। বিএনপি মহাসচিবের এমন অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে হারুন অর রশীদ বলেন, ‘সবাই সেখানে ছিলেন, সবাই দেখেছে। তিনি এ রকম অভিযোগ করতেই পারেন।’

পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিএনপির কার্যালয় থেকে উদ্ধার করা তিনটি ককটেল নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে।


এই বিভাগের আরো খবর