মোঃ আনোয়ারুল ইসলামঃ আমার যত্নে, আমার গাছ’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘দূর্বার তারুণ্য’ ‘আমরা মালি’ শীর্ষক চলমান আর একটি প্রকল্প সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নগরীর সিআরবি এলাকায় শতাধীক বৃক্ষ রোপণের মধ্য দিয়ে এই কর্মসূচি  সম্পপন্ন হয়।

এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে দূর্বার তারুণ্য সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মদ আবু আবিদের সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা করোনা প্রতিরোধের উদ্ভাবক হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর। তিনি বলেন, গাছকে বলা হয় অক্সিজেনের ফ্যাক্টরি। মানুষ, গাছ, প্রাণিকুল সব মিলে একটি বায়বীয় গ্যাসীয় সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে, যার মাধ্যমে একে অপরের উপকারার্থে নিবেদিত। কাজেই পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষরোপণের কোনো বিকল্প নেই।পরিবেশগত ভারসাম্য রক্ষার্থে একটি দেশের আয়াতনের শতকরা ২৫ ভাগ এলাকায় বনভূমি থাকা একান্ত প্রয়োজন রয়েছে বলে বিশেজ্ঞগণ মনে করেন। কিন্তু বাংলাদেশের আয়তনের তুলনায় বনাচ্ছাদিত এলাকার পরিমান মাত্র ৭.৭ ভাগ এবং ভুমি এলাকার তুলনায় ১৪ শতাংশ বনাঞ্চল। অতএব বিভিন্ন প্রকার শিল্পের উপকরণ ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার সীমাহীন প্রয়োজনের তুলনায় আমাদের বৃক্ষের সংখ্যা নিতান্তই নগণ্য। আমাদের প্রত্যেকেরই উচিত পরিকল্পিতভাবে বৃক্ষরোপণে অংশগ্রহণ করা। তাই গন পর্যায়ে বৃক্ষ রোপন ও সঠিক পরিচর্যা কেবল পরিবেশগত ভারসাম্য রক্ষার্থে এবং ফলমূল ও বনজ দব্যে দেশকে স্বনির্ভর করে তুলতে সাহায্য করবে না, বরং ব্যক্তি পরিবারের আর্থিক স্বাচ্ছন্দ্য বিধানে অনুকূল ভুমিকা পালন করে দেশের সার্বিক উন্নয়নে অবদান রাখবে। দেশের অর্থনীতি ও জনজীবনে স্বাচ্ছন্দ্য আনার জন্য আমাদের প্রত্যেকের প্রতিবছর অন্তত দুটি করে বৃক্ষ রোপণ ও এর সঠিকভাবে পরিচর্যা করা দরকার।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- রবিউল হাসান, হৃদয় হোসেন মল্লিক, কামরুল ইসলাম, এইচ এম আলাউদ্দিন, এমদাদুল হক মারুফ, এইচ এ মোবারক, হাকিমুল ইসলাম সাকিব, সাফায়েত মোর্শেদ, মোবারক উল্লাহ সহ আরো অনেকে।