নীলাকাশ টুডেঃ নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের একটি জুট মিল থেকে পরিত্যক্ত মেশিনারিজের পার্টস চুরি করার সময় বাধা দিলে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়েছে একদল দুষ্কৃতকারী। এ সময় ৮-১০ জনের একটি দুষ্কৃতকারী দল পুলিশকে লক্ষ্য করে পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে।

তখন পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাঁচ রাউন্ড শটগানের গুলি ছোড়ে বলে জানিয়েছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি।

এ সময় আব্দুল হান্নান (৩৫) ও জুয়েল নামে দুই দুষ্কৃতকারীকে গ্রেফতার ও কবির নামে একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে ১টি পেট্রলবোমা, ১টি ধারালো দা, ৩টি মোবাইল ফোন ও চোরাই কাজে ব্যবহৃত পিকআপ ভ্যানসহ মালামাল জব্দ করা হয়েছে।

সোমবার ভোরে সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন আটিগ্রামের মনোয়ারা জুট মিল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার ভোর ৪টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের আটিগ্রাম এলাকায় অবস্থিত মনোয়ারা জুট মিল থেকে আব্দুল হান্নান এবং তার সহযোগী জুয়েল ও কবিরসহ ৫-৭ জন দুষ্কৃতকারীকে পরিত্যক্ত মেশিনারিজের পার্টস খুলে ট্রাকে ভর্তি করতে দেখে তারা সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশকে অবহিত করেন।

সংবাদ পেয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল বাশার অন্যান্য পুলিশ সদস্য নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছলে দুষ্কৃতকারীরা ট্রাকভর্তি মালামাল নিয়ে পালানোর সময় পুলিশ তাদের ধাওয়া করে। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে তারা একটি পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে এ সময় পাঁচ রাউন্ড শটগানের গুলি ছোড়ে।

পরবর্তীতে পুলিশ তাদের ধরতে গেলে পেছন থেকে কয়েকজন দুষ্কৃতকারী পুলিশের গাড়ি ভাংচুর করে। এ সময় পুলিশ হাতেনাতে একটি অবিস্ফোরিত পেট্রলবোমাসহ আব্দুল হান্নানকে গ্রেফতার ও হান্নানের দেওয়া তথ্যমতে পরবর্তীতে ওই জুটমিলের পাশ থেকে জুয়েল নামে আরেক দুষ্কৃতকারীকে গ্রেফতার এবং কবির নামে এক দুষ্কৃতকারীকে আটক করে।

পুলিশের ওপর হামলার ঘটনা নিশ্চিত করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মোঃ মশিউর রহমান বলেন, এ ঘটনায় দুই জনকে গ্রেফতার ও একজনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। পুলিশের ওপর হামলা ও গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় মামলা হয়েছে।

আরও পড়ুন

ঘুমন্ত স্বামীর পাশে নববধূ স্ত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, স্বামীর লাশ উদ্ধার

নীলাকাশ টুডেঃ কুমিল্লায় এক নববধূকে নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে ঘুমন্ত স্বামীর পাশেই ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষণের ঘটনার পর রাতে স্বামীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে নাঙ্গলকোটের কাশিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। (১১ সেপ্টেম্বর) শনিবার সকালে নিহতের স্ত্রী থানায় ধর্ষণের মামলা করেন। এদিকে নিহত আরিফের মৃত্যুতে আরেকটি অপমৃত্যুর মামলা করেছে থানা পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশের ধারণা স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় লজ্জায় আত্মহত্যা করেছেন স্বামী আরিফ। এ নিয়ে স্থানীয়রা ফেসবুকে প্রতিবাদে সরব হওয়ার কারণে বিষয়টি রোববার সকলের নজরে আসে। জানা যায়, লক্ষ্মীপুর জেলার কমলনগর উপজেলার চরবাকলা গ্রামের আরিফ হোসেন কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার জোড্ডা বাজারের মুক্তা হোটেল নামক আবদুল হকের খাবারের দোকানে ওয়েটার হিসেবে কাজ করতেন। আরিফ হোসেন দোকানে কাজ করা অবস্থায় মুন্সিগঞ্জ জেলার এক মেয়ের সঙ্গে মোবাইলে প্রেমের সম্পর্কে জড়ান।

এক সপ্তাহ পূর্বে তারা পালিয়ে বিয়ে করেন। গত বুধবার রাতে তারা দোকান মালিক আবদুল হকের ছেলে লিটন ও স্থানীয় বাবুল মিয়ার ছেলে সিএনজি অটোরিকশা চালক সালাহউদ্দিনের সহায়তায় কাশিপুরের আজগর মিয়ার একটি পরিত্যক্ত ঘর ভাড়া নেন। এরপর গত বৃহস্পতিবার রাতে স্বামী-স্ত্রী দুইজন ঘুমিয়ে পড়লে ওই পরিত্যক্ত ঘরে প্রবেশ করে লিটন ও সালাউদ্দিন। এ সময় আরিফের ঘুমন্ত স্ত্রীকে নেশাজাত দ্রব্য খাইয়ে অচেতন করে ধর্ষণ করেন লিটন। সহযোগী সালাউদ্দিন ভিডিওচিত্র ধারণ করেন। ধর্ষণের একপর্যায়ে আরিফের ঘুম ভেঙে গেলে সালাউদ্দিন ও লিটন পালিয়ে যান।

নাঙ্গলকোট থানার ওসি আ স ম আবদুন নূর জানান, ধর্ষণের ঘটনায় স্ত্রী বাদী হয়ে দুই জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ধর্ষণের সময় ধারণকৃত ভিডিও চিত্রটি উদ্ধার করা হয়েছে। ভিডিও চিত্রের বিশ্লেষণ ও সরেজমিন তদন্তের মাধ্যমে আপাতত প্রতীয়মান হচ্ছে, লজ্জা সইতে না পেরে অপমানে আত্মহত্যা করেছে আরিফ।

এ ঘটনায় মুল হোতা ও ধর্ষক লিটনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অপর আসামি সালাউদ্দিন পলাতক রয়েছে। ভুক্তভোগীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন ঐ নববধূ। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে আরিফের মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। পলাতক আসামীকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যহত আছে।