ডেস্ক রিপোর্টঃ সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার নুরনগরে কোনো ভাবেই থামছে না পল্লী বিদ্যুতের লোডশেডিং। প্রতিদিন বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়ছে অথচ বিতরণ কোম্পানিগুলো প্রতিযোগিতা করছে লোডশেডিংয়ের। এ যেন সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।

ব্যবসায়ীরা বলেছেন, শিল্প- কারখানাগুলো পঙ্গু করে দিয়ে চক্রটি মূলত সরকারের বিরুদ্ধে মরণ খেলায় মেতেছে। তাদের ভাষ্য সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি দেশব্যাপী বিদ্যুতের সাব স্টেশনগুলোও আপগ্রেড করছে। প্রতিটি প্রকল্পে হাজার হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করছে। কিন্তু এর সুফল ঘরে তুলেতে পারছে না বিদ্যুতের বিতরণ কোম্পানিগুলোর দুর্নীতি, লুটপাট আর ষড়যন্ত্রের কারণে। সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থায় পল্লী বিদ্যুতের বিভিন্ন সমিতিতে। এই অবস্থায় চরম বিপাকে পড়েছেন শিল্প প্রতিষ্ঠানের মালিকরা।

জানা গেছে, শ্যামনগর উপজেলার নুরনগরকে শিল্পাঞ্চলীয় এলাকা বলা হয়, এখানে স-মিল, রাইস মিল, বরফ মিলের মত শিল্প প্রতিষ্ঠান আছে৷ আর এই প্রতিষ্ঠানগুলো চলতে বিদ্যুৎ এর বিকল্প নেই। বিদ্যুতের ভেলকিবাজি ভয়াবহ অবস্থা গ্রামে- গঞ্জে।

সারাদিনের মাঝে মধ্যে বিদ্যুৎ এর দেখা মিললেও অধিকাংশ সময় বিদ্যুৎ ছিলো না এলাকায়।

এদিকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কমে যাওয়ার সবে মাত্র স্কুল খুলতে শুরু করছে। কোমলমতি বাচ্চারা সন্ধ্যার দিকে পড়তে উৎসাহিত হলেও লোডশেডিং যেনো তাদের হতাশ করতেছে। ফ্রিজে রাখা পণ্য পচে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

এই বিষয়ে জানতে হেল্প লাইনের 01769401822 নাম্বারে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও ব্যস্ততা দেখাচ্ছে বলে একাধিক লোকজন অভিযোগ করেছেন। এর সত্যতা নিশ্চিত করতে আমাদের প্রতিনিধিও ফোন দিলেও ব্যস্ততা দেখায়।

যার ফলে কখন বিদ্যুৎ আসবে কেউ জানে না।

এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের উর্ধতন কতৃপক্ষের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।