রাজনীতি

নির্বাচন করবে কিনা জানালো হেফাজত

  নীলাকাশ টুডে ১১ সেপ্টেম্বর ২০২৩ , ২:১১:৫৪ প্রিন্ট সংস্করণ

 

 

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ একটি অরাজনৈতিক সংগঠন। এর ব্যানারে নির্বাচন করা বা কোথাও প্রার্থী হওয়ার সুযোগ নেই। তবে কেউ অন্য সংগঠনের ব্যানারে চাইলে নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবে। হেফাজতে ইসলামের মূল কাজ নাস্তিকদের দমন করা। নাস্তিকদের দাঁত ভাঙা জবাব দেওয়া। ইসলামবিরোধী, কোরআনবিরোধী, নবীবিরোধী কিছু হলে তার প্রতিবাদ করা। হেফাজতে ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার পরামর্শে পরিচালিত, ঢাকার নয়। সোমবার (১১ সেপ্টেম্বর) হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সদ্য ঘোষিত কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ও হাটহাজারী মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা আশরাফ আলী নিজামপুরী সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংগঠন থেকে কেউ অংশগ্রহণ করছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ রকম সুযোগ নেই। এটা অরাজনৈতিক সংগঠন। তবে কেউ অন্য কোনো রাজনৈতিক দলের ব্যানারে চাইলে পারবেন।

চলমান সরকার বিরোধী আন্দোলনে হেফাজতের ভূমিকা নিয়ে তিনি আরও বলেন, যেহেতু হেফাজত ধর্মীয়ভিত্তিক সংগঠন রাজনৈতিক নয়, সেহেতু সরকারবিরোধী আন্দোলন, সরকার পতন আন্দোলনের প্রশ্নই আসে না।

 

নির্বাচনের প্রাক মুহূর্তে হঠাৎ নতুন কমিটির প্রশ্নে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব বলেন, নির্বাচনের সঙ্গে এ কমিটি গঠনের কোনো সম্পর্ক নেই। মাঝে নেতাকর্মীরা সুসংগঠিত ছিল না এখন হয়েছে বিধায় মুরব্বিদের পরামর্শে কমিটি গঠন হয়েছে।

 

হেফাজত এবং হাটহাজারী মাদ্রাসার মধ্যে কোনো বিরোধ আছে কিনা জানতে চাইলে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব আরও বলেন, হাটহাজারী মাদ্রাসার বয়স প্রায় দেড়শ বছর। হাটহাজারী মাদ্রাসা যে উদ্দেশ্য নিয়ে চলমান হেফাজতও একই অর্থাৎ মাদ্রাসার ছাত্ররা দ্বীনধর্মে জ্ঞান অর্জন করে মুসলমানদের মাঝে প্রচার করছে। হেফাজতও একই ধারায় প্রবাহিত, তাহলে বিরোধ থাকবে কেন। হেফাজতে ইসলামের শাপলা চত্বরের আন্দোলনের কারণে বহির্বিশ্বে আরো বেশি সুপরিচিতি অর্জন করেছে হাটহাজারী মাদ্রাসা।

হেফাজতে ইসলাম ঢাকা থেকে পরিচালিত না কি হাটহাজারী মাদ্রাসা থেকে পরিচালিত প্রশ্নে মাওলানা আশরাফ আলী বলেন, হেফাজতের গঠনতন্ত্রেই লেখা আছে হাটহাজারী মাদ্রাসা হেফাজতের সদর দপ্তর। হাটহাজারী মাদ্রাসার মুরব্বিদের তত্ত্বাবধানে চলবে। সিনিয়র আমিরসহ তিন চারজন নায়েবে আমির হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষক। সুতরাং হাটহাজারী মাদ্রাসা থেকেই হেফাজত পরিচালিত। তবে যেহেতু ঢাকা বাংলাদেশের রাজধানী সেহেতু ঢাকার নেতারা কোনো পরামর্শ দিলে তা বিবেচনা করা হয়।

হেফাজতের কারণে অনেকেই হাটহাজারী মাদ্রাসা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে এহেন অভিযোগের বিষয়ে মাওলানা আশরাফ আলী আরও বলেন, শতকরা দুএকজন হয়তো নিতে পারে। হেফাজতের কারণে হেফাজতের আন্দোলনের কারণে মুখ ফিরিয়ে নেওয়া এটা অবান্তর। এ বিষয়ে আরো যাচাইবাছাই করা উচিত।

বাদ পড়া নেতাকর্মীদের নতুন কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার প্রশ্নে হাটহাজারী মাদ্রাসার সিনিয়র এ শিক্ষক বলেন, সাবেক আমিরে হেফাজত জুনায়েদ বাবুনগরী চাপের মুখে হোক- যেভাবে হোক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেছিলেন। বর্তমান আমির মুহিবুল্লাহ বাবুনগরী আবারো সবাইকে সুসংগঠিত করে কমিটি করেছেন।

কমিটিতে থাকতে অনেকেই অনীহা প্রকাশ করছেন এমন অভিযোগের ব্যাপারে তিনি জানান, হেফাজত দেশের সবচেয়ে বড় সংগঠন, প্রিয় সংগঠন। সবাই এ কমিটিতে আসার আগ্রহ প্রকাশ করছেন সে জায়গায় কেউ অনীহা প্রকাশ করছেন এটা সত্য বলে মনে করি না।

নতুন কমিটির কোনো কর্মসূচি আসছে কিনা জানতে চাইলে তিনি আরও জানান, অনেক রাজনৈতিক দল বিশেষ করে বিএনপি সরকার পতনের আন্দোলন করছে যেহেতু হেফাজত অরাজনৈতিক সংগঠন সেহেতু সরকারবিরোধী কিংবা সরকার পতনের কোনো আন্দোলনে যাবে না।

আরও খবর: রাজনীতি