নীলাকাশ টুডেঃ কিশোরগঞ্জের ভৈররের নবীপুর গ্রামে দুই চাচাতো ভাইয়ের দ্বন্দ্বে গ্রামবাসীর চলাচলের একমাত্র রাস্তায় বরই গাছের ডাল ও কাঁটা ফেলে বন্ধ করে দেয় এক ভাই। এতে চলাচলে দুর্ভোগে পড়ে এলাকাবাসী।

পরে গ্রামবাসীর অভিযোগে থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক এসআই আব্দুস সালাম মিয়া ও এএসআই মো. আউয়ালের সহযোগিতায় দুই পক্ষকে বুঝিয়ে সমঝোতার মাধ্যমে রাস্তাটি চালু করে দেওয়া হয়। এমন কাজে এলাকাবাসীর প্রশংসায় ভাসছে দুই পুলিশ সদস্য। বুধবার দুপুরে উপজেলার আগানগর ইউনিয়নের নবীপুর গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার আগানগর ইউনিয়নের নবীপুর গ্রামের দুই চাচাতো ভাই উসমান মিয়া ও শামসুল হকের সঙ্গে বাড়ির সামনের রাস্তা নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছিল। এসব বিরোধ নিয়ে দুইজনই একে অপরের বিরুদ্ধে থানায় ফৌজদারি মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলাটি চলমান আদালতে। এসব ঘটনার জের ধরে নবীপুর গ্রামের একমাত্র রাস্তাটি ৪-৫ দিন আগে কাঁটাসহ বরই গাছের ডাল বসিয়ে বন্ধ করে দেয় শামসুল হক।

এতে করে গ্রামবাসীর চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। পরর্বতীতে রাস্তা বন্ধের ঘটনাটি বিট পুলিশের দায়িত্বে থাকা ভৈরব থানার এসআই আব্দুস সালাম মিয়ার কাছে জানালে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে বন্ধ রাস্তাটি খুলে দেন।

জাহিদ মিয়া নামের এক বাসিন্দা বলেন, দীর্ঘদিন যাবত এই দুটি পরিবারের মাঝে রাস্তা নিয়ে বিরোধ চলছিলো। পরে এসআই আব্দুস সালামের সহযোগিতায় দুই চাচাতো ভাইয়ের মধ্যে সমঝোতা করা হয়। তারা পুলিশের কাছে অঙ্গীকার করেন আর কখনো রাস্তাটি বন্ধ করবেন না।

শামসুল হক মিয়া বলেন, এসআই আব্দুস সালামের অনুরোধে আমরা চাচাতো দুই ভাই বন্ধ করা রাস্তাটি খুলে দেই এবং থানায় দায়েরকৃত মামলা তুলে নেওয়ার জন্য অঙ্গীকার করেছি। রাস্তাটি আর কখনো বন্ধ করবো না।

ভৈরব থানার এসআই আব্দুস সালাম মিয়া বলেন, দুই ভাইয়ের বিরোধে গ্রামবাসীর রাস্তা কেন বন্ধ হবে। অভিযোগ পেয়ে ঘটনার সুষ্ঠু সমাধান করেছি। তারা অঙ্গীকার করেছে আর রাস্তা বন্ধ করবে না এবং উভয়েই মামলা প্রত্যাহার করে নিবেন।