নীলাকাশ টুডেঃ গাড়িতে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকায় ছয় বছরের এক শিশুকে বুকে লাথি মারেন গাড়ি চালক। ঘটনার আকস্মিকতায় হতবাক হয়ে যায় অবুঝ ছেলেটি। অমানবিক এই দৃশ্য ধরা পড়েছে সিসি ক্যামেরার ফুটেজে। ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তেই শুরু হয়েছে ব্যাপক সমালোচনা। অভিযুক্ত গাড়িচালকের যথাযথ শাস্তি দাবি করেছেন অনেকে।

জানা গেছে, ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের কেরালায়। এরই মধ্যে ওই অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে ভারতীয় আইনের বিভিন্ন ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে। ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যায়, একটি ছোট ছেলে ব্যস্ত রাস্তার পাশে দাঁড়ানো একটি গাড়িতে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এ সময় চালক গাড়ি থেকে বের হয়ে আসেন। কয়েক সেকেন্ড পরেই ওই ব্যক্তি শিশুটির বুকে লাখি মারেন। এরপর তিনি তার গাড়ির ভেতর ফিরে যান।

 

ভিডিওতে আরও দেখা যায়, শিশুটিকে লাথি মারতে দেখে পাশে আরও কয়েকটি গাড়ি দাঁড়িয়ে পড়ে। আশপাশের লোকজনও ঘটনাস্থলে জড়ো হন। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তের নাম শিহশাদ। সে থালাসেরির পোন্ন্যমপালাম এলাকার বাসিন্দা। আর শিশুটি রাজস্থানের একটি পরিযায়ী শ্রমিক পরিবারের সন্তান।

গত বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) ঘটনার পর স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিষয়টি পুলিশকে জানান প্রত্যক্ষদর্শী এক তরুণ আইনজীবী। ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পোন্ন্যমপালাম থানার পুলিশ। থানায় নিয়ে যাওয়া হয় অভিযুক্ত শিহশাদকে। কিন্তু তাকে কিছুক্ষণ পরেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ ওঠে। কেরালা পুলিশের এই ভূমিকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্থানীয়রা। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের দাবিতে সরব হন তারা। ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পাশাপাশি সংবাদমাধ্যমগুলোতে সম্প্রচারের পর নড়েচেড়ে বসে পুলিশ। এরপর শুক্রবার সকালে অভিযুক্ত শিহশাদকে পুলিশ ফের হেফাজতে নিয়েছে বলে জানা গেছে। সেই সঙ্গে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলাও দায়ের হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের খবর অনুসারে, অভিযুক্ত শিহশাদ দাবি করেছেন, শিশুটি গাড়ির দরজা খোলার চেষ্টা করছিল। তবে ভিডিওতে তেমন কোনো কিছুই ধরা পড়েনি। গাড়িতে হেলান দিয়ে শান্তভাবেই দাঁড়িয়ে ছিল সে। গাড়িচালক লাথি মারার পর শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয়রা।