নীলাকাশ টুডেঃ যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্বামী শ্বশুর- শাশুড়ি মিলে সুমিতা সরদার (২৫) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যার প্রচার চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘাতক স্বামী ও শ্বশুরকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) ভোর ৫টার দিকে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার কুশলিয়া ইউনিয়নের কুশলিয়া মল্লিক পাড়া গ্রামে। খবর পেয়ে থানার উপ পরিদর্শক নকিব পান্নু সকাল ৮টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন। এবং স্বামী মিঠুন (৩০) এবং শ্বশুর নির্মল মণ্ডল (৫৫) কে গ্রেফতার করেন। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

উক্ত ঘটনায় নিহত গৃহবধুর বাবা চাম্পাফুল ইউনিয়নের চাম্পাফুল গ্রামের বিশ্বজিৎ সরদার বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। নিহত গৃহবধুর স্বজনরা জানিয়েছেন, গৃহবধূ সুমিতার সঙ্গে কুশুলিয়া গ্রামের নির্মল মন্ডলের পুত্র মাদকাসক্ত মিঠুন মন্ডল এর সঙ্গে ৪/৫ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে ৪ বছরের দুইটি কন্যা সন্তান রয়েছে। নিহত গৃহবধূর পিতার বক্তব্য অনুযায়ী জিনিসপত্র ও জমি কেনা সহ মোটা অংকের টাকা দিয়েছিলেন জামাইকে। আরও যৌতুকের নেওয়ার আশায় প্রতিনিয়ত ওই গৃহবধূর উপর মারপিট নির্যাতন চালিয়ে আসছিল। বৃহস্পতিবার ভোরে সুমিতাকে নির্যাতন চালিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বাড়ির সামনে সবেদা গাছে রশি দিয়ে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা নাটক করেন বলে নিহত গৃহবধূর পিতা জানিয়েছেন। গৃহবধুর পিতা আরও জানিয়েছেন, লাশ নামিয়ে রেখে থানায় খবর দিলেও আমাদেরকে খবর দেয় নাই। থানা থেকে খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গেলে স্থানীয়রা নির্যাতনের বিষয়টি আমাদেরকে জানায়। ঘটনার বিষয়ে থানা পুলিশ পরিদর্শক নকিব পান্নু সাংবাদিকদের জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে স্বামী, শ্বশুর এর পরস্পর বিরোধী কথা অসংলগ্ন হওয়ায় তাদেরকে আটক করে নিয়ে আসা হয়েছে। পরবর্তীতে থানায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।