সোমবার, ২৯ মে ২০২৩, ০৯:১৮ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
সততার অভাবে সিলগালা করা হলো ‌‘সততা ডায়াগনস্টিক সেন্টার’ নুরনগরে কমিউনিটি পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত ৬ পুলিশ সদস্য ক্লোজড শ্যামনগরে ঘোড়া দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত সাতক্ষীরায় পেট্রোল ঢেলে একই পরিবারের তিনজনকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা শ্যামনগরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানসহ বিএনপি’র ৪ নেতা গ্রেফতার পাকিস্তানে শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাত, কাঁপল ভারতও কালিগঞ্জে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় শিশু নিহত আত্মতুষ্টির উপাদান খুঁজছে আ.লীগ-বিএনপি বিএনপি ক্ষমতায় গেলে আত্মহত্যার ঘোষণা এমপি’র! শ্বশুরবাড়ি থেকে বের হলেন রাগ করে সকালে, ঝুলন্ত লাশ মিলল বিকেলে! দৌলতপুরে রাস্তা সংস্কারের দাবিতে মানববন্ধন জাতীয় কবিতা মঞ্চ’র সেরা সম্মাননা পেলেন ইনকিলাবের শ্যামনগর প্রতিনিধি সাংবাদিক আবু কওছার বেনাপোলে সীমান্তেে ১৭ পিচ স্বর্ণের বারসহ পাচারকারী আটক। ৪ শিক্ষার্থীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন, ৯৯৯ নম্বরে কল পেয়ে উদ্ধার

কয়েক কোটি টাকা প্রতারণা!

নীলাকাশ টুডেঃ
আপডেট বৃহস্পতিবার, ২৫ মে, ২০২৩, ১:৩০ পূর্বাহ্ন

 

অনলাইন জুয়ার সাইট খুলে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে আটজনকে আটক করেছে পুলিশের অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ)। সংস্থাটি বুধবার তাদেরকে আটকের খবর জানায়।

পুলিশ বলছে, আটকরা জুয়া খেলার মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণা করে আসছিলেন। তারা মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবহার করে টাকা লেনদেন করতেন। এভাবে কয়েক কোটি টাকা লেনদেন করেছে এই চক্রটি।

 

আটকরা হলেন- মো. রকিবুল হাসান মিলন (৩৯), মো. সিরাজদৌলা ওরফে বাবু (৪০), মো. সুমন (৪৪), মো. ডলার (৪০), মো. আশরাফুল (৩৮), মো. শহিদুল ইসলাম (৪৫), মো. সুমন (৪২) ও জ্যোতি কুমার দেব (২৪)। তাদের কাছ থেকে অনলাইনে জুয়া পরিচালনার জন্য ব্যবহৃত নয়টি মোবাইল এবং নগদ ১০ হাজার ৮০০ টাকা উদ্ধার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

এটিইউ’র পুলিশ সুপার (মিডিয়া অ্যান্ড অ্যাওয়ারনেস উইং) মোহাম্মদ আসলাম খান জানান, এই চক্রটি বেশ কিছুদিন ধরে বেট৩৬৫, বেটবাজ৩৬৫, ড্রিমজ৪৪৪.কম, স্কাই ফেয়ার২৪৭, মাস্তি২৪৭ নামক জুয়ার সাইট পরিচালনা করে আসছিল। এসব সাইট ও অ্যাপের মাধ্যমে প্রতারণা করতেন চক্রের সদস্যরা। সোমবার বিশেষ অভিযান চালিয়ে রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানা এলাকা থেকে মো. রকিবুল হাসান মিলন এবং মো. সিরাজদৌলা ওরফে বাবুকে আটক করা হয়। এরপর তাদের দেওয়া তথ্যে বাকিদের আটক করা হয়।

পুলিশ সুপার জানান, আটকরা বেশ কিছুদিন ধরে একটি সংঘবদ্ধ চক্র হিসেবে অনলাইনে জুয়ার সাইট এবং অ্যাপ ব্যবহার করে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল। এক্ষেত্রে তারা মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবহার করছিল। এভাবে তারা ই-ট্রানজেকশনের মাধ্যমে কয়েক কোটি টাকা লেনদেন করেছে।


এই বিভাগের আরো খবর