মোঃ নুরুজ্জামানঃ সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী, রাজনৈতিক দলীয় এবং নেতা পরিচয়ে বা কার্ড বাণিজ্যের কথা উঠতেই পারে। এতে কারো গা না জ্বলে যখন আমার গা জ্বলবে তখনই সবাই ধরে নেবে ওই অপরাধের সাথে আমিই জড়িয়ে পড়েছি। কারো নাম উল্লেখ করে যদি কেউ লেখে তখন হিসেব এক রকম। আর যখন কেউ সাংবাদিকের নামে চাঁদাবাজির অভিযোগ এভাবে লিখবে তখন আরেক রকম। এতে আমাকে রাগ করার কিছু নেই। কারণ আমি সাংবাদিক হলেও আমার প্রতিষ্ঠান বা আমার নাম আসেনি। লেখাটি পুরো জাতির উপর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। যার ফলে আমি দূর্নীতি করলেও চুপচাপ থাকা বুদ্ধি মানের কাজ হবে। তবে যায় হোক আপনাকে বোঝানোর মত ক্ষমতা আমার নেই এবং আমি আপনাকে বোঝাতে চাইও না।

একটা কথা মনে রাখবেন পৃথিবীতে টাকা ছাড়া যেমন কিছু হয় না আবার টাকা থাকলেও সম্মান পাওয়া যায় না। অহেতুক নিজেকে একেবারে ছোট মনে করা যেমন বোকামি তেমন বিশাল কিছু মনে করাও বুদ্ধিমানের কাজ নয়। আপনি যদি মনে করেন আমার চেয়ে আর কেউ বোঝে না তাহলে আপনি মূর্খের রাজ্যে বাস করেন। তবে বেশি কিছু বলতে চাই না। এতটুকু বলতে চাই অহংকার করলে পতন হতে খুব বেশিদিন সময় লাগে না এটা শ্যামনগর উপজেলায় শতশত নজির রয়েছে। তাই সাবধান নিজে বিনয়ী হন, না হলে চুপচাপ থাকেন দাম্ভিকতা দেখাবেন না৷ আল্লাহ পাক অহংকার করা ব্যক্তিদের পছন্দ করেন না। ভালোবাসতে না পারলেও কাউকে ঘৃণা বা অবজ্ঞা করবে না।

পৃথিবীতে টাকার বিনিময়ে সব কিছু পাওয়া গেলেও ভালোবাসা পাওয়া যায় না। আবার বিনা টাকায় ভালো ব্যবহারে অফুরান্ত ভালোবাসা নিয়ে পারা যায় না। কার দরজায় কে কখন দাড়াবে আগের থেকে বলা মুশকিল। যেখানে দেখিবে ছায় সেখানে উড়িয়ে দেখো তাই পাইলেও পাইতে পারো অমূল্য রতন। পৃথিবী এমন একটা সিস্টেম যেখানে মানুষ অস্থির থাকে আপনি ধনি হন বা গরীব হন সময়ের ব্যবধানে তা পরিবর্তন আসে। ধনি আরও ধনি বা গরিব আরও গরীব বা এর উল্টোটাও হতে পারে। ধন্যবাদ

লেখক, নীলাকাশ টুডে এর সম্পাদক ও সাপ্তাহিক সূর্যের আলো পত্রিকার সাংবাদিক